More

    বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু ব্রিটিশ সাংবাদিক সায়মন ড্রিং মারা গেছেন

    একাত্তরে বাংলাদেশে পাকিস্তানি হানাদারদের নারকীয় হত্যাকাণ্ড চালিয়েছিল। সায়মন ড্রিং ছিলেন সেইসব ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী প্রথম বিদেশি সাংবাদিক । ওই সময়ে তিনি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নারকীয় হত্যাকান্ডের অনেক প্রতিবেদন তৈরি করেন । প্রতিবেদনে তিনি হানাদার পাকিস্তানি বাহিনীর রোমহর্ষক নির্যাতন ও গণহত্যার বর্ণনা তুলে ধরেন আন্তর্জাতিক মহলে।

    নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

    ‘মুক্তিযুদ্ধ মৈত্রী সম্মাননা’ খেতাবপ্রাপ্ত খ্যাতিমান সাংবাদিক সায়মন ড্রিং মারা গেছেন। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে অনবদ্য অবদান রয়েছে তার।

    রোমানিয়ার একটি হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের সময় গত শুক্রবার মৃত্যু হয় এই বাংলাদেশের অকৃতিম বন্ধু ব্রিটিশ সাংবাদিকের। রোমানিয়ার একটি নিভৃত পল্লীতে বসবাস করতেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর। তিনি স্ত্রী ফিয়োনা এবং জমজ কন্যা ইন্ডিয়া রোজ ও আভা রোজকে রেখে গেছেন।

    একাত্তরে বাংলাদেশে পাকিস্তানি হানাদারদের নারকীয় হত্যাকাণ্ড চালিয়েছিল। সায়মন ড্রিং ছিলেন সেইসব ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী প্রথম বিদেশি সাংবাদিক । ওই সময়ে তিনি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নারকীয় হত্যাকান্ডের অনেক প্রতিবেদন তৈরি করেন । প্রতিবেদনে তিনি হানাদার পাকিস্তানি বাহিনীর রোমহর্ষক নির্যাতন ও গণহত্যার বর্ণনা তুলে ধরেন আন্তর্জাতিক মহলে।

    মঙ্গলবার (২০ জুলাই) সায়মন ড্রিংয়ের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন তার সান্নিধ্য পাওয়া বিশিষ্ট সাংবাদিক ও লেখক তুষার আব্দুল্লাহ।

    তিনি বলেন, কলম আর ক্যামেরা হাতে সাংবাদিক হিসেবে নিজের জীবন বাজি রেখে মুক্তিযুদ্ধে অত্যাচারিত নিরীহ বাঙালিদের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন সাংবাদিক সায়মন ড্রিং।

    সায়মন ড্রিং একমাত্র সাংবাদিক, যিনি ১৯৭১ সালে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে শুরু থেকেই পাকিস্তানের ভয়াবহ নির্যাতনের চিত্র তুলে ধরেছিলেন তার প্রতিবেদনের মাধ্যমে।

    তার অসামান্য অবদানের জন্য বাংলাদেশ থেকে তাকে সম্মানসূচক নাগরিকত্ব দেওয়া হয়েছিল। ভারতের জন্য মার্ক টালি যেমন, সায়মন ড্রিং বাংলাদেশের মানুষের কাছে সেরকমই সম্মানের একজন।

    সায়মন ড্রিংয়ের মৃত্যুতে তার সান্নিধ্য পাওয়া দেশের অনেক গণমাধ্যমকর্মী শোক জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট দিয়েছেন।

    ভিয়েতনাম যুদ্ধ ও একাত্তরে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে প্রতিবেদন তৈরী করেছিলেন সায়মন ড্রিংকে। এসব প্রতিবেদনই তাকে বিশ্বজুড়ে খ্যাতি ও সুনাম এনে দিয়েছে।

    মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে তার তৈরি করা প্রতিবেদনগুলো বাংলাদেশের সপক্ষে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে জনমত তৈরিতে বিশেষ অবদান রেখেছিল।

    সায়মন ড্রিং বাংলাদেশে প্রথম এসেছিলেন ২০০০ সালে। দেশের প্রথম বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল একুশে টিভি গড়ে তোলার প্রধান কারিগর তিনি। ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার ক্ষমতায় এসে একুশে টিভি বন্ধ করে দেয়। পরে ২০০২ সালের অক্টোবর মাসে তৎকালীন সরকার সায়মন ড্রিংয়ের ভিসা ও ওয়ার্ক পারমিট বাতিল করে দেয়। অবিলম্বে তাকে বাংলাদেশ ত্যাগ করার আদেশ দেয়া হয়। সেই ঘটনার পর তিনি বাংলাদেশ ছাড়েন।দেশে যমুনা টেলিভিশনের যাত্রাটাও তার হাত ধরে শুরু হয়েছিল।

    সায়মন ড্রিংয়ের ১৯৪৫ সালে ইংল্যান্ডে জন্ম নেন। সাংবাদিকতা শুরু করেছেন মাত্র ১৮ বছর বয়স থেকে। তিনি অন্তত ২২টি যুদ্ধ, অভ্যুত্থান ও বিপ্লব এর খবর সংগ্রহ করেছেন।

    ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালরাতে বাংলাদেশের নিরীহ মানুষের উপর পাকিস্তানি সেনারা লোহমর্ষক নির্যাতন করেছিল। সেই নির্যাতনের ওপর প্রতিবেদন তৈরি করে সে সময় সাইমন ড্রিং ইন্টারন্যাশনাল রিপোর্টার অফ দ্য ইয়ার খেতাবে ভুষিত হয়েছিলেন।

    হাইতিতে আমেরিকান আগ্রাসনের ওপর প্রতিবেদন তৈরি করে অর্জন করেন নিউইয়র্ক ফেস্টিভ্যাল গ্র্যান্ড প্রাইজ খেতাব।ইরিত্রিয়া যুদ্ধের ওপর নির্মিত প্রতিবেদন ভ্যালিয়ান্ট ফর ট্রুথ, কুর্দিদের বিরুদ্ধে তুরস্কের যুদ্ধের প্রতিবেদনের জন্য সনি খেতাব পেয়েছেন। মহান স্বাধীনতাযুদ্ধের অকৃত্রিম বন্ধু হিসেবে ২০১২ সালে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে সাইমন ড্রিংকে মৈত্রী সম্মাননা দেয়া হয়।

    ব্রিটিশ সাংবাদিক সায়মন ড্রিংয়ের মৃত্যুতে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

    মঙ্গলবার (২০ জুলাই) এক শোক বার্তায় তিনি সায়মন ড্রিংয়ের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন। এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

    শোকবার্তায় মন্ত্রী বলেন, ‘মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বর্বরতার চিত্র সায়মন ড্রিং প্রথম বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরেন। ফলে পাকিস্তানি বর্বর বাহিনী কর্তৃক নিরস্ত্র বাঙালিদের গণহত্যার প্রকৃত ঘটনা বিশ্ববাসী জানতে পেরেছিল’।

    তিনি বলেন, বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতার ইতিহাসে বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু হিসেবে সায়মন ড্রিংয়ের অবদান চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে।

    © এই নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
    / month
    placeholder text

    সর্বশেষ

    রাজনীাত

    বিএনপি চেয়ারপারসনের জন্য বিদেশে হাসপাতাল খোজা হচ্ছে

    প্রভাতী সংবাদ ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার জন্যে আবেদন করা হয়েছে। খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যরা মনে করেন আবেদনে সরকারের দিক থেকে ইতিবাচক...

    আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ

    আরো পড়ুন

    Leave a reply

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    spot_imgspot_img