More

    এই সিরিজ জয় শত ব্যার্থতার আর গ্লানির মোক্ষম জবাব হয়ে থাকুক

    মাইটি অস্ট্রেলিয়ার কাছে মিনোজ ই রয়ে গেল বাংলাদেশ।তবে মাঝে ঘটে গেল কি এক রোমাঞ্চ! সাকিব-মেহেদীর ঘূর্ণি জাদুতে ক্রিকেটের অভিজাত সংস্করণে অস্ট্রেলিয়া কে হারিয়ে দিল বাংলাদেশ!এ যেন আরেক রুপকথা,আরেক ইতিহাস!বিশ্ব মিডিয়ার চোখেমুখে তখনো অবিশ্বাস!

    জিহাদ বাবু

    অজিদের বিপক্ষে বাঙালীর প্রথম বিজয় কেতন উড়েছিল কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনে, সেও আরো প্রায় দেড় দশক আগে।এক ঐতিহাসিক ক্ষণ।বাংলার লিটল মাষ্টার আশরাফুলের ব্যাটে সেদিন লেখা হয়েছিল এক রুপকথা।

    তারপর শুধু পরাজয়ের গ্লানি আর ভেঙ্গে পড়ার গল্প। কখনো টেস্ট,কখনো ওয়ানডে আবার কখনো টি-টুয়ান্টিতে বিশাল বিশাল ব্যাবধানে পরাজয়!কখনো ফতুল্লাতে,কখনো ঢাকায় আবার কখনো চট্টগ্রামে!আর ক্যান্টের্বারি কিংবা ডারউইনের গতিময় পিচে মনে হতো যেন খাবি খাচ্ছে যেন একখণ্ড বাংলাদেশ।মনে হতো অস্টেলিয়া নামে এক দৈত্য সামনে এলেই ভড়কে যায় সাকিব-তামিমেরা ।একবার তো তিয়াত্তর রানে অল-আউট।তাছাড়া বেশির ভাগ ই দেড়শোর আগে অল আউটের ইতিহাস!কি হেসে খেলেই, কি সহজেই হারাতো বাংলাদেশ কে।এ যেন হারের বৃত্তে বন্দি এক বাংলাদেশ।

    তবে সময় পেরিয়েছে মাঝে অনেক।গঙ্গার জল গড়িয়েছে অনেক দূর।মিনোজ দলের তকমা ধীরে ধীরে মুছে গেলো বাংলার ক্রিকেটের পাশ থেকে।তখন নিয়মিত ক্রিকেটের বড় সব পরাশক্তি কে হারায়।কখনো বৈশ্বিক টুর্ণামেন্টে কিংবা ঘরোয়া কোন সিরিজে। বাংলার ক্রিকেট কথা বলতে শুরু করেছে চোখে চোখ রেখে।

    কিন্তু মাইটি অস্ট্রেলিয়ার কাছে মিনোজ ই রয়ে গেল বাংলাদেশ।তবে মাঝে ঘটে গেল কি এক রোমাঞ্চ! সাকিব-মেহেদীর ঘূর্ণি জাদুতে ক্রিকেটের অভিজাত সংস্করণে অস্ট্রেলিয়া কে হারিয়ে দিল বাংলাদেশ!এ যেন আরেক রুপকথা,আরেক ইতিহাস!বিশ্ব মিডিয়ার চোখেমুখে তখনো অবিশ্বাস! বাংলাদেশ কিভাবে অস্ট্রেলিয়া কে টেস্ট হারায়!সেই অবিশ্বাস কে পাত্তাই না ধরে সেদিন মিরপুরে আরেকবার পতপত করে উড়ে ছিল বাঙালীর নিশান লাল সবুজের পতাকা।

    তার ই এক বছর পর ফের অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশ সফরে আসার সূচি প্রকাশ হল!কিন্তু অদ্ভুত বাহানায় সেই সিরিজ স্থগিত করলো তারা।যদিও সেই সময় ইন্ডিয়ার সাথে ইন্ডিয়ার মাটিতে তারা সিরিজ খেলেছে,আইপিএল খেলেছে!অথচ শুধু বাংলাদেশ সামনে এলেই যেন তাদের সমস্যার অন্ত নেই!

    আঠারো সালে একবার আসার সব কিছু চুড়ান্ত হলেও আবারও পিছু হটলেন অজিরা!তারপর বার দুয়েক আসার কথা থাকলেও নানান ছুতোয় পেছানো হল সিরিজ।

    একুশে অবশেষে পরাক্রমশালীদের আগমন হলো বঙ্গে!তবে সেখানে ছিল শর্তের ফুলঝুরি। যে দল সদ্য ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জে খেলে এসেছে, অথচ সেখানে ছিল না এত এত শর্ত!বাংলাদেশের বেলায় আসলেই শুধু সব বিপত্তি!শেষমেশ সব কিছুকে উপেক্ষা করে মাঠে গড়ালো অজি-টাইগার্স টি-টুয়ান্টি সিরিজ।

    যে বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ খেলার টালবাহানার অন্ত ছিলনা।এমনকি শেষ সময় ও সফরে না আসার শংকা।একে তো পাহাড় সমান শর্ত আবার সেখানেই অজিরা ভেবেছিল এই আর কি!জয় তো শুধু সময়ের ব্যাপার! দাম্ভিকতা আর অহংকারের সবটুকু দেখালো অজিরা!আত্মবিশ্বাসে যেন টইটুম্বুর!

    তবে এক আকাশ সমান আত্মবিশ্বাসে ও যে চিড় ধরতে পারে,এক নিমিষেই সব দাম্ভিকতার পতন হতে পারে,সমুদ্র সমান অহংকার ও যে মাটির সাথে মিশে যেতে পারে চোখের পলকে,সেটা অস্ট্রেলিয়ানরা সিরিজ শুরু আগেও ভেবেছিল কিনা কেন জানতো!আহা!নিয়তির কি নির্মম পরিহাস।

    তারপর,নতুন এক বাংলাদেশ।যেখানে আছে ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলে যাওয়া এক ঝাঁক তরুণ। যারা কথা বলতে পারে চোখে চোখ রেখে।ছেড়ে কথা বলার দিন বোধয় পুড়িয়েছে।

    অবশেষে এলো মাহেন্দ্রক্ষণ,সব দাম্ভিকতা চুরমার করে আবারো উড়লো বিজয় কেতন।জয় বাংলার লাল সবুজ পতাকা।

    বাংলার সন্তানেরা এতদিন গেয়েছে,”আমরা করবো জয় একদিন”। আজ জয় এসেছে,তারা আজ প্রাণভরে গাইবে,”ও পৃথিবী এবার এসে বাংলাদেশ নাও চিনে”

    প্রথম বারের অজিদের বিপক্ষে সিরিজ জয়ে “জয় বাংলা” অভিবাদন

    এই সিরিজ জয় শত ব্যার্থতার পর অজস্র অপমান আর গ্লানির মোক্ষম জবাব হয়ে থাকুক।এই সিরিজ জয় নতুন সূর্যের উদিত হওয়ার ক্ষণ হয়ে থাকুক।এই সিরিজ জয় তারুণ্যের আগমনী বার্তা হয়ে থাকুক।এই সিরিজ জয় শত অতৃপ্তি,বঞ্চনা আর অবহেলার যথার্থ উত্তর হয়ে থাকুক।

    জয় বাংলা

    © এই নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
    / month
    placeholder text

    সর্বশেষ

    রাজনীাত

    বিএনপি চেয়ারপারসনের জন্য বিদেশে হাসপাতাল খোজা হচ্ছে

    প্রভাতী সংবাদ ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার জন্যে আবেদন করা হয়েছে। খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যরা মনে করেন আবেদনে সরকারের দিক থেকে ইতিবাচক...

    আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ

    আরো পড়ুন

    Leave a reply

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    spot_imgspot_img