More

    আফগানে তালেবান উত্থানে তৌহিদি মুমিন’দের বিশ্বজয়ের দিবাস্বপ্ন

    তালেবান, আইএস, জামাতি ইসলাম এগুলো মূলত শটকাটে ক্ষমতায় গিয়ে ভোগ বিলাসে মেতে ওঠার ব্যাবস্থা । আমাদের দেশের তথাকথিত তৌহিদি মুমিন’দের স্বপ্ন পুরুষ তুরস্কের রাষ্ট্রপতি এরদোগান তালেবানদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। পরোক্ষভাবে তালেবানদের অমুসলিম ঘোষণা করেছে।

    জহিরুল হক বাপি:

    তৌহিদি মুমিনেরা তালেবানের সফলতার খবর পেয়ে এদেশেও তালেবান শাসনের স্বপ্ন দেখা শুরু করেছে। কেউ শত শত যৌণ দাসীর সঙ্গ চায়, আর কেউ চায় শত শত জঙ্গির যৌণ জেহাদি হতে। তার সাথে রক্তে রয়েছে মানুষের আদিম অন্ধ উগ্রতা। ধর্ম তাদের প্রডাক্ট মাত্র।

    গ্রেফতার হওয়া জঙ্গিবাদের প্রচারক আলী হাসান ওসামা, হারুন ইজহার তালেবানের আফগানস্থানের মাটিতে শক্ত অবস্থানের পরে উগ্র বক্তব্য বাড়িয়েছে।

    বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ ভবনে হামলা করতে গিয়ে গ্রেফতার হওয়া জঙ্গির বরাতে উঠে আসে আলী হাসান ওসামা’র নাম। এছাড়া হেফাজতের ভিতরে তালেবানী মতবাদ ছড়ানো আর আগেও জঙ্গিবাদে অগ্রসরতা’র পরে গ্রেফতার করা হয় হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতা হারুন ইজহার’কে।

    এরপরই মূলত তালেবান সমর্থক’দের উচ্ছ্বাস আর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখা যায় নি।

    চীনের উইঘর মুসলিমদের উপর নির্যাতন নিয়ে শুধু মুসলিমরাই না বিভিন্ন জাতি গোষ্ঠী, দেশও সরব। এর মধ্যে যেমন ধর্মীয় কারণ রয়েছে তেমনি রয়েছে মানবিকতা ও রাজনীতি। উইঘুর মুসলিম নির্যাতন নিয়ে এ দেশীয় তালেবানরা (মূর্খ, ফইন্নী, লিল্লাহ খাওয়া ছাগলের তিন নম্বর বাচ্চা) চীনের বিরুদ্ধে মিন মিন সুরে জেহাদ করতে চায়। উইঘুর মুসলিম নিয়ে খুব উচ্চ কন্ঠে কিছু বলতে চায় না তারা।

    ফিলিস্থিনের মুসলিম নির্যাতনের ১০০০ ভাগের ১ ভাগও উইঘুরের ব্যাপারে সরব না। এর প্রধান ও একমাত্র কারণ হচ্ছে রাজনীতি। তাদের পেয়ারা পাকিস্তান হলো চীনের বাথরুম ক্লিনার/সুইপার শ্রেণীর। চীন তাদের নিয়মিত ভাত পঁচা মদ খাওয়ায় পাকিস্তানিদের যোগ্যতা, মূল্য অনুযায়ী।

    আমাদের তথাকথিত তৌহিদি মুমিন’রা যদি সত্যিকারের ধার্মিক হতো তবে চীনের উইঘরের মুসলিম নির্যাতনের বিরুদ্ধেও একই রকম সরব থাকত স্বাভাবিক কারণেই। ফিলিস্থিনের ১০০০ ভাগের এক ভাগ হলেও এতদিন সরব ছিল এখন থেকে তাও বন্ধ। উইঘুরের মুসলিমদের কথা আর যারই মনে থাকুক এ দেশীয় মুসলিদের মনে থাকবে না। হয়ত তথাকথি মুসলিম বিশ্বই এদের কথা ভুলে যাবে।

    পাকিস্তান কখনও উইঘুর মুসলিমদের নিয়ে কিছু বলে না। মধ্য প্রাচ্যের কথিত “মুসলিম উম্মাহ” নিয়ে কোন মাথা ব্যাথা নাই। দুই দিন আগে চীনের সাথে তালেবানদের গোপন আলোচনা হয়েছে। ৮ জন তালেবান নেতা চীনের আমন্ত্রণে চীন গিয়েছে। আর এই আলোচনা স্থল ছিল উইঘুর’দের আবাস জিনজিয়াং’য়ে। সেই জিনজিয়াংয়ে তালেবান বলেছে আফগানিস্তানের মাটি চীনের বিরুদ্ধে কখনও সন্ত্রাসীদের ব্যাবস্থা করতে দেওয়া হবে না।

    অথচ তালেবানরাই অবৈধ, তালেবানরাই সন্ত্রাসী। চীন কোন নীতিতে বিশ্বে পরিচিত একটি সন্ত্রাসী, জঙ্গি গোষ্ঠীর সাথে গোপন আলোচনা করলো এটা আরেকটা প্রশ্ন। তালেবানদের চীনারা ব্যবহার করবে ভারতে বিরুদ্ধে।

    এ অবস্থায় ভারতের তালিবানপন্থীরাও উগ্র হয়ে উঠবে বা উগ্র করা তোলা হবে। এর ফলে হিন্দু মুসলিম বিদ্বেষ বাড়বে। মূলত তখন মাইর খাবে চীন, ভারত, আফগানিস্তানের সাধারণ মুসলিমরা। শেষ অবস্থা এমনও হতে পারে চীন আর ভারত আফগানিস্তান ভাগাভাগি করে দখল নিবে।

    তালেবানদের এ ঘোষণার পর আমাদের দেশের তথাকথিত তৌহিদি জনতা বিরাট এক অগ্নিপরীক্ষায় পড়ত যদি তাদের নূন্যতম চিন্তা শক্তি, লজ্জা থাকত। এখনও তাদের ছোট খাট পরীক্ষায় পড়তে হয়েছে।

    উইঘুরের নির্যাতন নিয়ে মাঝে মধ্যে ইউরোপিয়ান , আমেরিকানসহ পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ সরব হবে এই তৌহিদি জনতা যারা চীনে জেহাদ করতে যেতে চেয়ে ছিল তারা তখন নিরব থাকবে। কেউ কেউ হয়ত বাধ্য হয়ে নিরব থাকবে।

    তালেবান, আইএস, জামাতি ইসলাম এগুলো মূলত শটকাটে ক্ষমতায় গিয়ে ভোগ বিলাসে মেতে ওঠার ব্যাবস্থা । আমাদের দেশের তথাকথিত তৌহিদি মুমিন’দের স্বপ্ন পুরুষ তুরস্কের রাষ্ট্রপতি এরদোগান তালেবানদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। পরোক্ষভাবে তালেবানদের অমুসলিম ঘোষণা করেছে।

    © এই নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
    / month
    placeholder text

    সর্বশেষ

    রাজনীাত

    বিএনপি চেয়ারপারসনের জন্য বিদেশে হাসপাতাল খোজা হচ্ছে

    প্রভাতী সংবাদ ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার জন্যে আবেদন করা হয়েছে। খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যরা মনে করেন আবেদনে সরকারের দিক থেকে ইতিবাচক...

    আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ

    আরো পড়ুন

    Leave a reply

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    spot_imgspot_img