More

    ছেলের আশায় মেয়ে সন্তানের জন্ম: পুকুরে ছুড়ে মেরে ফেললেন বাবা-মা

    জেলা প্রতিনিধি, সাতক্ষীরা:

    তিন মেয়ের পর চেয়েছিলেন চতুর্থ সন্তান হবে ছেলে। কিন্তু আশাভঙ্গ হয়ে মেয়ে সন্তান জন্মগ্রহণ করায় আটদিন বয়সী নবজাতককে পুকুরের পানিতে ছুড়ে ফেলে হত্যার অভিযোগ উঠেছে এক দম্পত্তির বিরুদ্ধে।

    সাতক্ষীরার তালা উপজেলার খলিলনগর ইউনিয়নের রায়পুর গ্রামে মানিক ঘোষ ও শ্যামলী দম্পতির বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে।

    বুধবার (০২ জুন) ভোরে নবজাতকের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। আটক করা হয়েছে নবজাতকের মা শ্যামলী ঘোষ’কে। এ ঘটনায় নবজাতকের মাকে পুলিশ আটক করলেও বাবা পলাতক রয়েছেন।

    স্থানীয়রা জানান, ২৫ মে রাতে মানিক ঘোষ ও শ্যামলী দম্পতির একটি মেয়েসন্তান ভূমিষ্ট হয়। তাদের আগে তিনটি মেয়েসন্তান রয়েছে। মেয়ের জন্মের পর স্বামী বাড়ি ছেড়ে চলে যান। মঙ্গলবার (০১ জুন) সকাল থেকে নবজাতকটি নিখোঁজ ছিল। পরে গ্রামবাসীসহ পরিবারের সদস্যরা খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। পরে রাতে বাড়ির পাশে পুকুরে নবজাতকটির মরদেহ ভাসমান অবস্থায় দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেওয়া হয়।

    খলিলনগর ইউনিয়নের রায়পুর গ্রামের বাসিন্দা আজমীর হোসেন জানান, ছেলেসন্তানের আশায় বাচ্চা নিয়ে মেয়ে হয়েছে। সে কারণে রাগ করে নবজাতকটিকে মেরে ফেলা হয়েছে।

    খলিলনগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান লিটু জানান, ঘটনাস্থলে চৌকিদারকে পাঠানো হয়েছিল। চৌকিদার ফিরে এসে জানিয়েছেন, শ্যামলী ঘোষের স্বামী মানিক ঘোষ বলেছেন, ‘তিন মেয়ের পর আবার মেয়ে হয়েছে। এ মেয়েকে মেরে না ফেললে তোকে আমি বাড়িতে রাখব না। সে স্বামীর কথামতো নবজাতকটিকে মেরে পুকুরের পানিতে ফেলে দেয়। পরে রাতে পুলিশ নবজাতকটির মরদেহ উদ্ধার করে।’

    তালা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী রাসেল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

    © এই নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
    / month
    placeholder text

    সর্বশেষ

    রাজনীাত

    বিএনপি চেয়ারপারসনের জন্য বিদেশে হাসপাতাল খোজা হচ্ছে

    প্রভাতী সংবাদ ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার জন্যে আবেদন করা হয়েছে। খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যরা মনে করেন আবেদনে সরকারের দিক থেকে ইতিবাচক...

    আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ

    আরো পড়ুন

    Leave a reply

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    spot_imgspot_img