More

    নূর বলছে ছাত্রদলের ঘটনায় বিএনপি ক্ষমা চেয়েছে, জাফরুল্লাহ বলছে ‘না’

    নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

    জাফরুল্লাহকে একপ্রকার প্রকাশ্যে হুমকি দেয়া হয়েছে। এই বিষয়টাতে চুপ থাকার কারণ কি ? এমন প্রশ্নের জবাবে নূর বলেন, ‘ছাত্রদলসহ বিএনপির বিভিন্ন ঊর্ধ্বতন জায়গা থেকে এটার জন্য দুঃখ প্রকাশ করা হয়েছে। তিনি বলেন, জাফরুল্লাহ চৌধুরীর কাছে বিভিন্ন অভ্যন্তরীণভাবে ক্ষমা চাওয়া হয়েছে।

    তারেক রহমান ও বিএনপিকে নিয়ে কথা বলা থামাতে জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে হুমকি দিয়েছেন সংগঠনের সহসভাপতি কাওসার। জাফরুল্লাহ’র কিছু হয়ে গেলে ছাত্রদল দায়ী থাকবে না বলে উল্লেখ করেন তিনি।

    এমন প্রকাশ্য হুমকি দেয়ার প্রায় তিন সপ্তাহেও ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূর কোনো প্রতিক্রিয়া জানাননি।

    গত কয়েক বছরে জাফরুল্লাহ ও নূরের মধ্য সুসম্পর্ক গড়ে উঠেছে। আলোচিত কিংবা সমালোচিত সব ইস্যুতে তারা একই সুরে কথা বলেন। গতকাল মঙ্গলবার জাফরুল্লাহর প্রতিষ্ঠান গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে দুজন একসঙ্গে এক অনুষ্ঠানেও বক্তব্য রাখলেও জাফরুল্লাহকে হুমকির বিষয় এড়িয়ে গেছেন।

    নূর নিয়মিত ফেসবুক লাইভে এসে বিভিন্ন কথা বলেন। রাজনৈতিকসহ প্রায় সব ইস্যুতে তিনি তার মতো করে ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ করেন। আর বলাই বাহুল্য, সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের আন্দোলনে নেতৃত্ব দেয়া ছাত্রলীগের সাবেক এই নেতা এখন সরকারের কট্টর সমালোচক হয়ে উঠেছেন।

    জাফরুল্লাহকে একপ্রকার প্রকাশ্যে হুমকি দেয়া হয়েছে। এই বিষয়টাতে চুপ থাকার কারণ কি ? এমন প্রশ্নের জবাবে নূর বলেন, ‘ছাত্রদলসহ বিএনপির বিভিন্ন ঊর্ধ্বতন জায়গা থেকে এটার জন্য দুঃখ প্রকাশ করা হয়েছে। তিনি বলেন, জাফরুল্লাহ চৌধুরীর কাছে বিভিন্ন অভ্যন্তরীণভাবে ক্ষমা চাওয়া হয়েছে।


    নূরের ভাষ্যমতে, বিএনপির বিভিন্ন জায়গা থেকে এটার জন্য ওনার কাছে ক্ষমা চেয়েছে বা দুঃখ প্রকাশ করেছে বিষয়টির জন্য।

    গত ২৬ জুন জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক অনুষ্ঠানে জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে প্রকাশ্যে হুমকি দেন ছাত্রদলের সহসভাপতি ওমর ফারুক কাউসার।

    তবে এই হুমকিকে ছাত্রদল সমর্থন করে বলে জানিয়েছে ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল।

    তিনি বলেন, ‘জাফরুল্লাহ চৌধুরী একজন বয়স্ক মানুষ। মুক্তিযুদ্ধে তার ভাল একটি ভূমিকা রয়েছে। তারেক জিয়া এই মুহূর্তে ছাত্রদলের সাংগঠনিক অভিভাবক। দলকে নিয়ে, অভিভাবককে নিয়ে কথা তোলায় নিজের আবেগ ধরে রাখতে না পেরে সে (কাউসার) প্রতিবাদ করেছে।

    এ ধরনের প্রতিবাদকে সমর্থন জানিয়ে তিনি বলেন, ভবিষ্যতে ঘটলেও আমরা তা-ই করব। একই সঙ্গে জাফরুল্লাহ চৌধুরীর মতো একজন বুজুর্গ ব্যক্তির থেকে এ রকম কথাবার্তা আমরা আশা করি না।’

    ছাত্রদলের এই অবস্থানকে সমর্থন করেছে বিএনপির সহযোগী সংগঠন স্বেচ্ছাসেবক দল।

    প্রেস ক্লাবে সেদিন যা ঘটেছিল

    গত ২৬ জুন জাতীয় প্রেস ক্লাবে এডুকেশন রিফর্ম ইনিশিয়েটিভ (ইআরআই) নামে বিএনপি সমর্থক একটি সংগঠন সেমিনারের আয়োজন করে ।

    আলোচনার একপর্যায়ে বিএনপি, তারেক রহমান, খালেদা জিয়ার প্রসঙ্গে কথা বলেন জাফরুল্লাহ। বিএনপি চলে লন্ডন থেকে আসা ওহি দিয়ে এমন মন্তব্য করেন।

    তারেক রহমানকে লন্ডনে দুই বছর চুপচাপ থেকে পড়ালেখা করার পরামর্শ দেন জাফরুল্লাহ।

    তাতেই চটে যায় ছাত্রদল সহসভাপতি কাওসার। তারেক রহমান ও বিএনপিকে নিয়ে কথা বলা থামাতে জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে একপ্রকার হুমকি দেন তিনির।বলেন আপনার(জাফরুল্লাহ’র) কিছু হয়ে গেলে ছাত্রদল দায়ী থাকবে না।

    ছাত্রদল নেতার এমন হুমকির পর বিএনপির সভায় জাফরুল্লাহকে আক্রমণ করে কথা বলেছেন বলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

    গত ৩ জুলাই বিএনপির এক অনলাইন আলোচনায় জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে নাম উল্লেখ না করে আক্রমণ করে কথা বলেন তিনি।

    তিনি বলেন, ‘আজকাল পত্রপত্রিকায় কিছু সুধীজন আমাদের মাঝে মাঝে কিছু কিছু উপদেশ দেন।আমাদের নেতৃত্ব নিয়ে উলটাপালটা কথা বলতে থাকেন। তাদের সবিনয়ে বলব যে, ফ্যাসিবাদকে উৎসাহিত করে এমন কথা বলবেন না। যারা ক্ষমতায় আছে তাদের ক্ষমতায় থাকার পথটাকে প্রশস্ত করবেন না।

    সেদিনের সেই ঘটনার পর বিএনপিপন্থিদের কোনো অনলাইন সভায় জাফরুল্লাহকে ডাকা হয়নি। আর জাফরুল্লাহ চৌধুরীও বিএনপিকে নিয়ে আর কোন কথা বলেননি।

    অবশ্য সেই ঘটনার পর থেকে জাফরুল্লাহ চৌধুরীর কাছে কেও ক্ষমা চায়নি। তিনি নিজেই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

    জাফরুল্লাহ চৌধুরী জানিয়েছেন, সেদিনের ঘটনা নিয়ে বিএনপির কোন নেতা তাকে ফোন করেননি।

    এদিকে, বিএনপির এক সভায় দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় তাকে ইঙ্গিত করে বক্তব্য রেখেছেন। তাতে তিনি চটে গিয়ে বলেছেন, বিএনপির নেতারা গোঁয়ার।

    জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, সেদিনের ঘটনায় বিএনপির কেউ তাকে ফোন করেননি। তাহলে আপনি কেমন করে জানলেন যে, তারা ক্ষমা চেয়েছেন? এমন প্রশ্ন শুনে কথার সুর পাল্টে নূর বলেন, ‘তিনি (জাফরুল্লাহ) বিএনপির অনেকের সঙ্গেই বেশ ভালোভাবে সম্পৃক্ত আছেন।আমার মনে হয় উনি চাচ্ছেন বিষয়টা মিডিয়ায় না আসুক।

    ছাত্রদল নেতা কাওসারের আচরণ দুঃখজনক বলেছেন নূর

    ছাত্রদল নেতা কাওসারের আচরণ দুঃখজনক বলেছেন নূর। তিনি বলেন, ‘জাফরুল্লাহ চৌধুরী একটা কথা বলেছেন ছাত্রদলের নেতার যদি অপছন্দের হয়, তবে বিনয়ের সঙ্গে বলা যেত।বলতে পারত, স্যার আপনার এই কথাটা আমরা মেনে নিতে পারি নাই। আমাদের নেতা সম্পর্কে এ ধরনের কথা বললে আমরা কষ্ট পাই। কিন্তু সেটা না করে সেই ছেলেটির (ছাত্রদল নেতা কাউসার) আচরণ খুবই দুঃখজনক।’

    © এই নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
    / month
    placeholder text

    সর্বশেষ

    রাজনীাত

    বিএনপি চেয়ারপারসনের জন্য বিদেশে হাসপাতাল খোজা হচ্ছে

    প্রভাতী সংবাদ ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার জন্যে আবেদন করা হয়েছে। খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যরা মনে করেন আবেদনে সরকারের দিক থেকে ইতিবাচক...

    আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ

    আরো পড়ুন

    Leave a reply

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    spot_imgspot_img