More

    প্রতিটি মানুষকেই জিজ্ঞাসাবাদ করছে সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসন

    নাজমুল হাসান, সিরাজগঞ্জঃ

    মহামারী করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসন সবসময় কাজ করছে। সকাল—বিকাল সবসময় মানুষজনকে সচেতন করা হচ্ছে। প্রতিটি মানুষকেই জিজ্ঞাসাবাদ করে গন্তব্যে যেতে দিচ্ছে তারা। যারা অকারণে বের হচ্ছে তাদের বাসায় পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

    সোমবার (০৫ জুলাই) জেলার শিয়ালকোল বাজারে অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মাসুদুর রহমান।

    তিনি জানান, প্রায় সকল মানুষকেই জিজ্ঞাসাবাদের আওতায় আনা হচ্ছে। জরুরি প্রয়োজনে বের হওয়া মানুষজনকে গন্তব্যে যেতে দেওয়া হচ্ছে।

    প্রয়োজন ছাড়া যারা বের হচ্ছে তাদের বুঝিয়ে বাসায় পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। তবে মাস্ক না থাকায় শিয়ালকোল বাজারে একজন মোটরবাইক চালককে ২০০ টাকে জরিমানা করা হয়েছে।

    এরপর জেলার কাঠেরপুলের প্রায় ১০ টির মতো চা স্টল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কাঠেরপুল এ থাকা সিএনজি স্ট্যান্ড এ থাকা সব সিএনজি বাড়িতে পাঠানো হয়েছে। এসময় একজন সিএনজি চালককে ২০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পাশাপাশি হোটেলে বসিয়ে খাওয়ানারো অভিযোগে দু’জন হোটেল মালিককে ৪০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

    পাশাপাশি বিভিন্ন জায়গায় অভিযান দিয়ে কিংবা বড় বড় রাস্তার মোড় এ দাড়িঁয়ে প্রতিটি মানুষেরর কাছেই বাইরে বের হওয়ার কারণ জানতে চাওয়া হচ্ছে। এর ফলে মানুষজন সচেতন হচ্ছে।

    অভিযানে জেলা পুলিশ ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা সার্বিক সহায়তা করেন।

    নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মাসুদুর রহমান জানান, জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় আমরা কাজ করছি। চেষ্টা করছি প্রয়োজন ছাড়া কোনো মানুষ যেন বের না হয়। কোথাও যেন জনসমাগম না হয়। প্রতিটি মানুষকেই জিজ্ঞাসাবাদ করছি। যাদের জরুরি প্রয়োজন তাদের ছেড়ে দিচ্ছি, অন্যদের বাসায় পাঠিয়ে দিচ্ছি।

    আরো পড়ুন হাট-বাজার বন্ধে প্রশংসনীয় ভূমিকা রাখছে সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসন

    সিরাজগঞ্জ জেলার এনায়েতপুরের সবচেয়ে বড় কাপড়ের হাট বন্ধ করে দিয়েছে জেলা প্রশাসন, সিরাজগঞ্জ। জরিমানা কিংবা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে নয় বরং করোনা ভাইরাসের ক্ষতিকর দিকগুলো বুঝিয়েই হাঁট বন্ধ করতে সক্ষম হয়েছে জেলা প্রশাসন।

    শুধু জেলা শহরেই নয়, গ্রামে গঞ্জে চিরুনি অভিযান দিয়ে সচেতন করছে তারা। যা সিরাজগঞ্জ জেলায় করোনা নিয়ন্ত্রণে খুবই জরুরি ছিল।

    রবিরার (০৪ জুলাই) জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এনায়েতপুর থানা পুলিশের সাথে যোগাযোগ করে এনায়েতপুরের হাট বন্ধ করার নির্দেশ প্রদান করেন।

    এরপর এনায়েতপুর থানা পুলিশ প্রায় ভোর ০৫ টা থেকে খবর নিয়ে এনায়েতপুরের সবচেয়ে বড় কাপড়ের হাট বন্ধ করেছেন।

    এরপর সকাল ১০ ঘটিকা থেকে প্রায় দুপুর ০২ টা পর্যন্ত এনায়েতপুর-চৌহালি অভিযান পরিচালনা করে জেলা প্রশাসন, সিরাজগঞ্জ।

    সেখানে চৌহালির এসিল্যান্ড ও জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মাসুদুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। তারা এনায়েতপুরে অভিযান দিয়ে একটি গরুর হাট বন্ধ করে দিয়েছে। যা ছিল সময়ের দাবি।


    এই অভিযানে ছিলেন হাটের সভাপতি, হাটের ইজারাদার, খুকনি এবং সদিয়া চাঁদপুর এর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান। অভিযান পরিচালনায় সহযোগীতা করেন পুলিশ ও বিজিবি এর সদস্যরা।

    শুধু শহর কেন্দ্রিক নয়, গ্রামে গঞ্জের বড় বড় হাট গুলোতে জনসমাগম বেশি হয়ে করোনা ভাইরাস ছড়াতে পারে এরকম অনেক হাট-বাজার বন্ধ করে দিচ্ছে জেলা প্রশাসন, সিরাজগঞ্জ।

    আর জেলা প্রশাসনের এরকম প্রশংসনীয় উদ্যেগ কে সাধুবাদ জানিয়েছে সিরাজগঞ্জ জেলার সচেতন মানুষজন।

    সাধারণ মানুষজন কে জরিমানা করতে হবে এরকম চিন্তা ধারা নিয়ে নয়, বরং তাদের সচেতন করতে অভিযান চালাচ্ছে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা। জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদ এর নির্দেশনায় সকল উপজেলার ইউএনও’রাও কাজ করছেন করোনা নিয়ন্ত্রণে।

    নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ মাসুদুর রহমান জানান, করোনা নিয়ন্ত্রণে হাট-বাজার বন্ধ করতেই হবে। বড় বড় হাটে করোনা ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা থাকে। আমরা তথ্য পেলেই অভিযান চালাচ্ছি। জনগণের স্বার্থে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

    আরো পড়ুন সিরাজগঞ্জে মাস্ক না পড়ায় ১১ জনকে জরিমানা

    মাস্ক না পরার অপরাধে সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলায় জামতৈল এলাকায় ১১ জনকে ২ হাজার ৮০০ টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

    শনিবার ( ৩ জুলাই) সকালে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের একটি দল এই অর্থদণ্ড আদায় করেন। এসময় বিজিবির সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন।

    বেলা সাড়ে ১০টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চলে।

    অভিযানে নেতৃত্ব দেন কামারখন্দ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাজমুন নাহার।

    তিনি বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করার মূল উদ্দেশ্য হলো মানুষের মধ্যে মাস্ক পরাবিষয়ক সচেতনতা বাড়ানো।

    মানুষের মধ্যে মাস্ক পরার প্রবণতা বেড়েছে উল্লেখ করে এই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, অভিযানে এসে বেশির ভাগ সময় মানুষকে মাস্ক পরা অবস্থায় পেয়েছি। অভিযানের কারণে বা সচেতনতার কারণে মানুষ মাস্ক পরছে এটা হতে পারে। উপজেলা প্রশাসনের নিয়মিত অভিযান চলছে। মাস্ক পরার হার বেড়েছে।

    এর আগে ১জুলাই ২৪ ঘন্টায় সিরাজগঞ্জে সর্বোচ্চ করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছিল।

    সিরাজগঞ্জ জেলাতে অতীতের সকল রেকর্ড ভেঙ্গে গত ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে সর্বোচ্চ করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের সংখ্যা দিনে দিনে বৃদ্ধি পাওয়ায় শঙ্কায় রয়েছে সিরাজগঞ্জবাসী।

    ২৭৩ টি নমুনা পরীক্ষা করে ১১৯ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ এসেছে। যা সিরাজগঞ্জ জেলায় সর্বোচ্চ। শনাক্তের হার ৪৩.৫৯ শতাংশ।

    উপজেলা ভেদে সদরে ৬৫, রায়গঞ্জে ১৩, বেলকুচিতে ০৪, চৌহালীতে০২, উল্লাপাড়াতে ১০, কামারখন্দে ১০, কাজিপুরে ১১, শাহজাদপুরে ০৩ ও তাড়াশে ০৪, চৌহালিতে ০২ জনের করোনা ভাইরাস পজিটিভ এসেছে।

    জেলা সিভিল সার্জন বলছে, সিরাজগঞ্জবাসী সচেতন না হলে এবং লকডাউন কঠোরভাবে না মানলে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা আরো বাড়বে।

    © এই নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
    / month
    placeholder text

    সর্বশেষ

    রাজনীাত

    বিএনপি চেয়ারপারসনের জন্য বিদেশে হাসপাতাল খোজা হচ্ছে

    প্রভাতী সংবাদ ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিদেশে উন্নত চিকিৎসার জন্যে আবেদন করা হয়েছে। খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যরা মনে করেন আবেদনে সরকারের দিক থেকে ইতিবাচক...

    আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ

    আরো পড়ুন

    Leave a reply

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    spot_imgspot_img